কয়রায় ভূমিহীন এর বসতবাড়ি জবর দখলের অপচেষ্টা, ভাঙচুর ও লুটপাটের অভিযোগ 


রুদ্রবাংলা প্রকাশের সময় : মার্চ ৩০, ২০২৪, ২০:২৬ /
কয়রায় ভূমিহীন এর বসতবাড়ি জবর দখলের অপচেষ্টা, ভাঙচুর ও লুটপাটের অভিযোগ 

খুলনার কয়রার সর্ব দক্ষিণে এক ভূমিহীন পরিবারের বসতবাড়ি জবর দখলের চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়ে ব্যাপক ভাংচুর ও লুটপাটের অভিযোগ উঠেছে।

ঘটনাটি ঘটেছে গত ২৯ মার্চ শুক্রবার দিবাগত রাত সাড়ে নটায় উপজেলার দক্ষিণ বেদকাশী ইউনিয়নের গোলখালী গ্রামের সরকারি পুকুর পাড় এলাকায়।

ভুক্তভোগী প্রত্যক্ষদর্শীও গ্রামবাসী সূত্রে জানা যায়, ভুক্তভোগী গোলখালী গ্রামের ভূমিহীন জাফর আলী, দক্ষিণ বেদকাশী মৌজার এস এ ০১নং খতিয়ানের এস এ ৬৩৮৭, ৬৩৮৯ ও ৬৩৯০ নং দাগের ১.৮৫ একর জমি চিরস্থায়ী বন্দোবস্ত মূলে প্রাপ্ত হইয়া উক্ত জমিতে বসতবাড়ি নির্মাণ করিয়া দীর্ঘদিন যাবত বসবাস করে আসছিলো। (বন্দোবস্ত কেস নং ৪৩/সি,ও রেভিনিউ ১৯৬৯-৭০) হঠাৎ শুক্রবার রাতে প্রতিবেশী মিজানুর রহমান খোকার নেতৃত্বে ৭/৮ জনের একটি দল দেশীয় অস্ত্র সজ্জিত হয়ে জাফর আলীর বসতবাড়িতে হামলা চালিয়ে ভুক্তভোগী জাফর আলীকে বেধড়ক মারপিট করে বসত ঘরে থাকা সাব বাক্সের মধ্যে থেকে নগদ টাকা ও সাংসারিক মূল্যবান মালামাল জোরপূর্বক নিয়ে নেয় এবং চলে যাওয়ার সময় বসতঘরের দরজা জানালা বেড়া সিমেন্ট সিটের ছাউনি চাল দা ও কুড়াল দিয়া কুপিয়ে ভাঙচুর করে বসত ঘর গুঁড়িয়ে দেয়। ভুক্তভোগী জাফর আলী বলেন,শুক্রবার রাত সাড়ে নটার দিকে আমি তারাবি নামাজ পড়ে বারান্দায় বসে ছিলাম এ সময় প্রতিবেশী মৃত রহিম মোড়লের পুত্র মিজানুর রহমান খোকার নেতৃত্বে সাত আট জনের একটি দল আমাকে বেধড়ক মারপিট করে ঘরে থাকা সবকিছু লুটপাট করে নিয়ে যায় এবং যাওয়ার আগে বসতঘরের দরজা জানালা বেড়া চাল কুপিয়প ভাঙচুর করে এবং বলে যায় ২ লক্ষ টাকা দিবি নইলে বসত বাড়ি ছেড়ে দিবি।

এ সকল অভিযোগ অস্বীকার করে প্রতিপক্ষ মিজানুর রহমান খোকা বলেন, এ ঘটনা সম্পর্কে আমার জানা নেই, তবে ওই জমিটা আমার। আমি দীর্ঘদিন যাবত উক্ত জমি ভোগ দখল করে আসছিলাম আমার প্রতিপক্ষ জাফর আলী ভুয়া বন্দোবস্ত দলিল তৈরি করে অল্প কিছুদিন আগে আমি বাইরে থাকার সুযোগে প্রতিপক্ষরা সেখানে একটা ঘর বাঁধে পরে ওই ঘর নিজেরা ভাঙচুর করে আমার ওপরে মিথ্যা দায় চাপানোর চেষ্টা চালাচ্ছে। ভাঙচুর লুটপাটের ঘটনা সাজানো বলে তিনি দাবি করেন।

কয়রা থানার ওসি মোঃ মিজানুর রহমান বলেন, বিষয়টি শুনেছি অভিযোগ পেলে তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা নেয়া হবে।