জাতীয় সাংবাদিক সংস্থা ঝালকাঠি জেলা শাখার সাংবাদিকতাকে ঠিকাদারী ঘটনায় জড়িয়ে সংবাদ পরিবেশনে নিন্দা ও প্রতিবাদ


রুদ্রবাংলা প্রকাশের সময় : ফেব্রুয়ারী ২৪, ২০২৪, ১৯:০৮ /
জাতীয় সাংবাদিক সংস্থা ঝালকাঠি জেলা শাখার সাংবাদিকতাকে ঠিকাদারী ঘটনায় জড়িয়ে সংবাদ পরিবেশনে নিন্দা ও প্রতিবাদ

প্রেসবিজ্ঞপ্তি॥ ঝালকাঠিতে ঠিকাদারী কাজ নিয়ে বিরোধের জের ধরে আদালতে মামলা হলেও উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে সাংবাদিকতাকে জড়িয়ে বিভ্রান্ত সৃষ্টি করায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে জাতীয় সাংবাদিক সংস্থা ঝালকাঠি জেলা শাখার নেতৃবৃন্দ। সাংবাদিকদের স্বার্থ রক্ষায় দীর্ঘ ৪৩ বছর যাবৎ কাজ করে যাচ্ছে একমাত্র সরকারী নিবন্ধনভুক্ত এই সংগঠনটি।
সংগঠনের পক্ষ থেকে এক বিবৃতিতে বলা হয়, ঝালকাঠি পানি উন্নয় বোর্ডের জনৈক ঠিকাদার আব্দুল মন্নান গত ১৮ ফেব্রুয়ারি অপর ঠিকাদার ও আওয়ামীলীগ নেতা মো. মনির হোসেন এর নামে একটি মামলা দায়ের করেন। মামলায় কোথায়ও বাদী আব্দুল মন্নান উল্লেখ করেননি তিনি একজন সাংবাদিক। মামলার এজাহারে বাদি আব্দুল মন্নান তার পরিচয় উল্লেখ করেছেন জেলা কৃষকলীগের যুগ্ম সম্পাদক পদে দায়িত্ব পালন করছেন। অথচ কিছু ুমিডিয়া ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আব্দুল মন্নানকে সাংবাদিক উল্লেখ করে ঠিকাদারি বিরোধের সংবাদ পরিবেশন ও ষ্ট্যাটাস দেয়। যা অত্যান্ত দুঃখজনক ও সাংবাদিকদের পেশাগত দায়িত্ব পালনের ক্ষেত্রে সমালোচিত হয়েছে। সাংবাদিক হিসাবে বা সাংবাদিকতার কোন বিষয় নিয়ে এই ঘটনা বা মামলা হয়েছে বলেও ঠিকাদার আব্দুল মন্নান তার এজাহারে উল্লেখ করেনি। কিন্তু অতি উৎসাহী কিছু ব্যাক্তিরা ঠিকাদার আব্দুল মন্নানকে ভোরের কাগজ প্রতিনিধি উল্লেখ করে তার উপর ঠিকাদারের হামলা নির্যাতনের সংবাদ পরিবশেন করে। এতে সাংবাদিকতা পেশাকে সমালোচিত ও বিতর্কিত করা হয়েছে বলে জাতীয় সাংবাদিক সংস্থা ঝালকাঠি জেলা শাখা মনে করে।যার কোন প্রতিবাদ জানায়নি আব্দুল মন্নান। ঠিকাদারী এই ঘটনায় কোনভাবে সাংবাদিকতার বিষয়টি জড়িত না থাকায় এ নিয়ে অধিাকাংশ জাতীয় ও ঝালকাঠি থেকে প্রকাশিত সরকার নিবদ্ধিত ৪টি দৈনিক পত্রিকায় কোন সংবাদ পরিবেশন করা হয়নি।
এই আব্দুল মন্নান যে সাংবাদিকতার সাইনবোর্ড নিয়ে সরাসরি ঠিকাদারী কাজের সাথে সম্পৃক্ত সেটাই জানা গেল এসব সংবাদে। শুধু তাই নয়। ঠিকাদারী কাজের স্বার্থে ব্যাঘাত ঘটলে এই মহান পেশাকে এভাবে বিতর্কীত করে ফায়দা হাসিল করার চেষ্ঠা করেন। যা নিন্দনীয় উল্লেখ করে বিবৃতিতে আরো বলা হয়,এমন ঘটনার ভবিষ্যতে পূনরাবৃত্তি না ঘটে সে বিষয়ে সকল সাংবাদিকদের সতর্ক থাকার অনুরোধ জানানো হয়েছে। ঠিকাদারী ঘটনাকে সাংবাদিকতায় জড়িয়ে প্রশাসনের উপর প্রভাব বিস্তার করতে যেন কেহ না পারে সে বিষয়ে প্রশাসনের প্রতি সুদৃষ্টি কামনা করা হয়েছে। যারা এ পেশাকে বিতর্কিত করতে তৎপর তাদের চিহ্নিত করে তালিকাভূক্ত করার আহ্বান জানানো হয়। সাংবাদিকতা পেশাকে ঠিকাদারীর সাথে জড়িয়ে সংবাদ পরিবেশনের অপতৎপরতার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে ঝালকাঠি সংবাদপত্র পরিষদ এবং সিনিয়র সাংবাদিকবৃন্দ।