খুলনার কয়রা অর্জুনপুর হাসানিয়া দাখিল মাদ্রাসা নিয়োগে দুর্নীতির অভিযোগ ওঠায় সুপার পদে পরীক্ষা স্থগিত!


রুদ্রবাংলা প্রকাশের সময় : ফেব্রুয়ারী ৩, ২০২৪, ১৭:০১ /
খুলনার কয়রা অর্জুনপুর হাসানিয়া দাখিল মাদ্রাসা নিয়োগে দুর্নীতির অভিযোগ ওঠায় সুপার পদে পরীক্ষা স্থগিত!

খুলনার কয়রা উপজেলার মহারাজপুর ইউনিয়নেরর অর্জুনপুর হাসানিয়া দাখিল মাদ্রাসায় সুপার নিয়োগে টাকার লেদদেন ও দুর্নীতির অভিযোগ উঠায় স্থানীয় এমপি মোঃ রশীদুজ্জামান এর হস্তক্ষেপে নিয়োগ পরীক্ষা স্থগিত করা হয়েছে।

শনিবার (০৩ ফেব্রুয়ারী) অর্জুনপুর হাসানিয়া মাদ্রাসায় এই নিয়োগ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল। সে মোতাবেক যথাসময়ে ডিজির প্রতিনিধিসহ নিয়োগ পরীক্ষার সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন থাকা সত্ত্বেও মোটা অংকের টাকা লেনদেনের বিষয়টি জানাজানি হওয়ায় ক্ষুব্ধ এলাকাবাসী বিষয়টি তাৎক্ষণিক স্থানীয় সংসদ সদস্য কে জানালে সংসদ সদস্যের হস্তক্ষেপে তাৎক্ষণিক নিয়োগ পরীক্ষায় স্থগিত করা হয়।

জানা যায়, ওই মাদ্রাসায় সুপার পদে নিয়োগ পেতে ৮ জন প্রার্থী আবেদন করেন। কিন্তু ম্যানেজিং কমিটি ওই মাদ্রাসার সহকারী সুপার আব্দুস ছালামকে ১১ লক্ষ টাকা লেনদেন এর মাধ্যমে সুপার হিসেবে নিয়োগ পাইয়ে দেওয়ার অভিযোগ ওঠে। বিষয়টি নিয়ে স্থানীয় বাসিন্দারা মাদ্রাসায় জটলা বাধিয়ে নিয়োগে বিরোধীতা করেন। স্থানীয়রা এমপির কাছে অভিযোগ করলে এমপির হস্তক্ষেপে নিয়োগ পরিক্ষা স্তগিত হয়।

অভিযোগ ওঠে আর আগেও একই মাদ্রাসায় (১৯-০৭-২০২৩) (০৩-০৯-২০২৩) (২৭-০৯-২০২৩) তারিখ ৩ বার সুপার নিয়োগ পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি দিলেও নানা অভিযোগ মাদ্রাসার নিয়োগ পরিক্ষা বাতিল হয়।

নিয়োগ পরীক্ষা স্থগিতের বিষয়টি স্বীকার করে কয়রা উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আবুল কালাম আজাদ বলেন,অনিয়মের অভিযোগ উঠায় নিয়োগ পরীক্ষাটি স্থগিত রাখা হয়েছে।

এ ব্যাপারে অর্জুনপুর হাসানিয়া মাদ্রাসার সুপার নিয়োগ পরীক্ষার দায়িত্বপ্রাপ্ত ডিজির প্রতিনিধি খুলনা আলিয়া কামিল মাদ্রাসার অধ্যক্ষ আ খ ম জাকারিয়া বলেন, নিয়োগে লেনদেন বিষয়টি আমার জানা নেই। আমি এসেও কোন অনিয়ম দেখতে পায়নি। মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার অসুস্থতার কারণে না আসায় পরিক্ষা স্থগিত রাখা হয়েছে। কোন প্রকার অনিয়মের অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

জানতে চাইলে সুপারিনটেনডেন্ট পদে আবেদনকারী আব্দুস ছালাম বলেন, যোগ্যতা অনুযায়ী সুপার পদে আসতে চাই।কোন আর্থিক লেনদেন করার যুক্তি আসে না। আমি সহ মোট ৮ জন আবেদন করছিলাম তারা সবাই পরিক্ষা দিতে এসেছিলেন। শুনতেছি শিক্ষা অফিসার অসুস্থ উনি না আশার কারণে পরিক্ষা স্থগিত করা হয়।

এ ব্যাপারে মাদ্রাসা ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি জহুরুল হক বাচ্চু বলেন, মাদ্রাসায় নিয়োগে অনিয়ম ও স্বজন প্রীতির কোন সুযোগ নেই যথাযত নিয়ম মেনেই নিয়োগ পরিক্ষা অনুষ্ঠিত হচ্ছিল শিক্ষা অফিসার অসুস্থ তাই পরিক্ষা স্থগিত রাখা হয়।স্থগিতকৃত নিয়োগ পরীক্ষা পরবর্তীতে নেওয়া হবে।