শরীয়তপুরে পুলিশের ধাওয়া খেয়ে গাড়ি খাদে ফেলে পালিয়েছে ছিনতাইকারী দল


রুদ্রবাংলা প্রকাশের সময় : জানুয়ারী ২৩, ২০২৪, ০৭:০৮ /
শরীয়তপুরে পুলিশের ধাওয়া খেয়ে গাড়ি খাদে ফেলে পালিয়েছে ছিনতাইকারী দল

শরীয়তপুর থেকে আক্তার হোসেনঃ

দামি গাড়িতে এসে র‌্যাব পরিচয়ে এক ব্যক্তিকে বাস থেকে নামায় একদল লোক। এরপর তার কাছ থেকে ১০ লাখ ৮ হাজার ৫০০ টাকা ছিনিয়ে নেয় তারা। খবর পেয়ে পুলিশ পিছু নিলে গাড়ি রেখেই পালিয়ে যায় ছিনতাইকারী দলটি।

ছিনতাইয়ের শিকার ব্যক্তির নাম আতিকুর রহমান। তিনি গোপালগঞ্জের মুকসুদপুর উপজেলার বি কে নগর ইউনিয়নের বগাইল গ্রামের খবির শেখের ছেলে। বর্তমানে তিনি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন।

ফরিদপুরের ভাঙ্গা থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মামুনুর রশিদ এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।
রোববার (২১ জানুয়ারি) দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে শরীয়তপুরের পদ্মা দক্ষিণ থানা এলাকা থেকে ছিনতাইকারী দলের ব্যবহার করা গাড়িটি উদ্ধার করেছে পুলিশ।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, ছিনতাইয়ের ঘটনার খবর পেয়ে পুলিশ ধাওয়া করলে ছিনতাইকারী দল গাড়ি নিয়ে দ্রুত গতিতে পালাতে থাকে। তারা শরীয়তপুরের পদ্মা দক্ষিণ থানার নাওডোবা এলাকার ন্যাশনাল ব্যাংক সংলগ্ন সরু সড়কে ঢুকে পড়ে। এরপর সেখানে নিয়ন্ত্রণ হারায় গাড়িটি। তারপরও পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছানোর আগে ছিনতাইকারীরা সবাই পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়।

নাওডোবা এলাকার লাল মিয়া মোলঙ্গী নামে স্থানীয় এক বাসিন্দা বলেন, হঠাৎ করেই পদ্মা সেতু এপ্রোচ সড়ক থেকে দ্রুত গতিতে একটি গাড়ি সরু সড়কে এসে অর্জুন গাছের সঙ্গে ধাক্কা খায়। গাড়িটি থামার সঙ্গে সঙ্গে গাড়ির ভেতরের লোকজন সবাই বের হয়ে দ্রুত অন্যত্র চলে যায়। এর কয়েক মিনিটের মধ্যে পুলিশ এসে গাড়িটি উদ্ধার করে। শুনেছি ছিনতাই করে পালিয়ে যাওয়ার সময় পুলিশ গাড়িটিকে ধাওয়া করেছিল।

জানা গেছে, উদ্ধারের পর ওই গাড়ির ভেতরে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী ও বেসরকারি একটি টেলিভিশনের লোগো সংযুক্ত স্টিকার পাওয়া গেছে। এছাড়া গাড়িতে ১ হাজার টাকার ১৫টি ও ২০০ টাকার ৯টি জাল নোট এবং ১০ টাকার নোটের ৮টি বান্ডেলে ৮ হাজার আসল টাকা ও ১০০ টাকার কিছু খুচরা নোট পাওয়া গেছে।

ভাঙ্গা থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মামুনুর রশিদ বলেন, ছিনতাইয়ের ঘটনা শোনার সঙ্গে সঙ্গে ছিনতাইয়ের কাজে ব্যবহৃত গাড়িটিকে আমি নিজে ফোর্স নিয়ে ধাওয়া করি। পরবর্তীতে পদ্মা দক্ষিণ থানা পুলিশের সহযোগিতায় গাড়িটি জব্দ করতে সক্ষম হই। তবে ছিনতাইকারীদের আটক করা সম্ভব হয়নি।

তিনি বলেন, ছিনতাইকারীরা ভুক্তভোগী আতিকুর রহমানের কাছ থেকে ১০ লাখ ৮ হাজার ৫০০ টাকা ছিনিয়ে নিয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে জানতে পেরেছি। পরবর্তীতে আতিকুর রহমান হাসপাতাল থেকে সুস্থ হয়ে ফিরলে টাকার পরিমাণ নিশ্চিত করা হবে এবং আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।