কাউখালীতে মাকে মেরে রক্তাক্ত করেলো ছেলে


রুদ্রবাংলা প্রকাশের সময় : ডিসেম্বর ২২, ২০২৩, ০৭:৩০ /
কাউখালীতে মাকে মেরে রক্তাক্ত করেলো ছেলে

কাউখালীতে মাকে নির্যাতন করে ঘর থেকে রেব করে দিলো ছেলে। অভিযোগের পরিপেক্ষিতে ইউএনও র পরামর্শে বাড়ি ফিরে যান । এর পরে শুরু হয় নির্যাতনের শেষ ধাপ। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে অভিযোগ দেওয়া এখন কাল হয়ে দাঁড়িয়েছে তার।

জানা যায় উপজেলার বদরপুর গ্রামের মৃত্যু আব্দুল রব হাওলাদারের স্ত্রী সূর্যবানু। তিনি তার আগের সংসারের ছেলে মিজানুর রহমান কে সাথে নিয়ে মৃত্যু স্বামী আব্দুরব হাওলাদারের বাড়িতে বসবাস করেন। ছেলে মিজানুর প্রথমে বিয়ে করলে এক ছেলে এবং এক মেয়ে হয়। এরপর পুনরায় একটি বিয়ে করেন। প্রথম স্ত্রীকে তাড়িয়ে দিয়ে দ্বিতীয় স্ত্রীকে নিয়ে মা ও আগের ঘরের দুই সন্তান সাথে মায়ের কাছে থাকে। দ্বিতীয় স্ত্রীর কথা একটাই মা এবং আগের দুই সন্তানকে বাড়ি থেকে তাড়াতে হবে।
এই সূত্র ধরেই প্রতিদিন ছেলে তার মায়ের উপরে নানা ধরনের নির্যাতন শুরু করে।
গত বুধবার সকালবেলা মিজানুর রহমান তার মাকে বাড়ি থেকে চলে যেতে বললে কোথায় যাইবে ও কোথায় থাকবে এই বিষয়ে ছেলের কাছে জানতে চাইলে শুরু হয় মাকে নির্যাতন, এক পর্যায়ে মাকে লাথিমারাসহ ব্যধরক ভাবে মেরে রক্তাত করে। সে অবস্থায় ঘর থেকে বের করে দেয়।ঘটনার সময় সে জ্ঞান হারিয়ে ফেলে।পরবর্তী সময় জ্ঞান ফিরলে নাতি মুনিয়া আক্তারের সহযোগিতায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার নিকট হাজির হয়ে বিষয়টি খুলে বলেন এবং লিখিত অভিযোগ করেন। ইউএনও নিরাপর্ত্তার আশ্বাস দিয়ে তাকে পুনরায় বাড়ি পাঠিয়ে দেন। এব্যাপারে মা সূর্যবানু জানান, নাতিকে বিবাহ দেওয়ার জন্য বিধবা ভাতা এবং ভিক্ষা করে ৮০ হাজার টাকা জমা করে ছিলাম তাও ছেলে হাতিয়ে নিয়েছে। তিনি আরো জানান প্রায়ই তাকে ছেলে তার স্ত্রীর কথায় নির্যাতন, অত্যাচার করে বাড়ী থেকে বের করে দেয়। বুধবার নির্বাহী কর্মকর্তার নিকট নির্যাতনের বিষয় অভিযোগ করায় আজ দুপুরে ছেলে মাকে পুনরায় মারধর করেন।
স্থানীয়রা গোপনে বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে জানালে তিনি তৎক্ষণিকভাবে ঘটনা স্থানে পৌঁছেন। ইউএনওর উপস্থিতি টের পেয়ে মিজান এবং তার স্ত্রী পালিয়ে যায় । এসময় স্থানীয় মেম্বার মাসুদ হোসেন স্থানীয় অন্যান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত হয় মাকে নির্যাতনের বর্ণনা দেন ।
এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা স্বজল মোল্লা জানান, অভিযোগ পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করা হয়েছে । অভিযোগের সত্যতা পাওয়া যায় । আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।
বার্তা প্রেরক
মোঃ এনামুল হক
কাউখালী, পিরোজপুর।