গাজীপুরে পাঁচ তলা আবাসিক ভবন নির্মাণে আইন অমান্য ও প্রতিবেশীর জমি দখল ও হুমকির অভিযোগ উঠেছে


রুদ্রবাংলা প্রকাশের সময় : নভেম্বর ২৯, ২০২৩, ১৬:০০ /
গাজীপুরে পাঁচ তলা আবাসিক ভবন নির্মাণে আইন অমান্য ও প্রতিবেশীর জমি দখল ও হুমকির অভিযোগ উঠেছে

নগরীর ২৬ নং ওয়ার্ডের মারিয়ালী পূর্বপাড়া এলাকার এ ঘটনায় ক্ষতির মুখে পড়েছেন ইকবাল পরিবার। তিনি প্রশাসনের কাছে অভিযোগ করেও কোন প্রতিকার পাচ্ছেন না।

সরেজমিনে জানা যায়, মারিয়ালী পূর্বপাড়ার ইকবাল হোসেন সরকার তাদের পৈতৃক জমিতে নির্মিত বাড়িতে বসবাস করছেন। প্রতিবেশী মৃত বাসির উদ্দিনের স্ত্রী সাফিয়া খাতুন দুই বছর আগে ইকবাল হোসেনের বাড়ির পূর্ব পাশ ঘেঁষে চার কাঠা জমিতে পাঁচ তলা বাড়ির নির্মাণ কাজ শুরু করেন।
ইতিপূর্বে বাড়িটির তৃতীয় তলার ছাদ ঢালাই সম্পন্ন হয়েছে। দ্বিতীয় তলা থেকে ব্যালকনি নির্মাণের সময় ইকবাল হোসেনের বাড়ির ওপর দিকে কিছু অংশ বাড়িয়ে দেওয়া হয়। এর ফলে তার জমির প্রায় ৩০ ফুট দৈর্ঘ্যের কিছু কিছু অংশ দখল হয়ে যায়।
এ ঘটনায় তিনি গত ১৫ অক্টোবর গাজীপুর সিটি করপোরেশনের মেয়র ও গত ১৯ অক্টোবর গাজীপুর উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান বরাবর লিখিত অভিযোগ করেছেন। কিন্তু অদ্যাবধি কোন ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি।
ইকবাল হোসেন জানান, রাজউক থেকে অনুমোদন নিলেও ওই ভবন নির্মাণে নিয়ম মানা হচ্ছে না। ভবনটি নির্মাণে পেছনের অংশে কোন জমি না ছাড়ায় তিনি ক্ষতির মুখে পড়েছেন। তার ঘরের ওপরে নির্মাণ সামগ্রীর বর্জ্যও ফেলা হচ্ছে।
ইমারত নির্মাণ বিধিমালা অনুযায়ী, একটি স্থাপনা ঘেঁষে আরেকটি স্থাপনা নির্মাণ করা যাবে না। ওই বাড়ি নির্মাণে জমির পরিমাণ অনুপাতে পেছনের অংশে দুই মিটার অর্থাৎ ছয় ফুট জমি ছাড়ার কথা। এর ব্যত্যয় হলে নকশা বহির্ভূত অংশ ভেঙে দেওয়াসহ জরিমানার বিধান রয়েছে।
এদিকে ইকবাল হোসেন নিয়ম বহির্ভূত কাজের প্রতিবাদ করায় তাকে হুমকি-ধমকি দেওয়া হচ্ছে। এ নিয়ে তিনি গত ২৬ অক্টোবর জিএমপি সদর থানায় একটি সাধারণ ডাইরি করেছেন। জিডি নম্বর ২৮৮৭।
এ ছাড়া গত ৪ নভেম্বর স্থানীয়ভাবে সালিশি বৈঠক ও মাপজোখ করা হয়। কিন্তু সাফিয়া খাতুন ও তার ছেলেরা সালিশের সিদ্ধান্ত মানেননি। তারা জোরপূর্বক কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন।
এ ব্যাপারে অভিযুক্ত পক্ষের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করেও তাদের পাওয়া যায়নি।