পৌর মেয়রের পদ শূন্য ঘোষণা সাতক্ষীরা


রুদ্রবাংলা প্রকাশের সময় : নভেম্বর ২৫, ২০২৩, ০৯:১০ /
পৌর মেয়রের পদ শূন্য ঘোষণা সাতক্ষীরা

সাতক্ষীরা পৌরসভার মেয়র তাজকিন আহমেদ চিশতির বিরুদ্ধে দুর্নীতি, নাশকতা ও সরকারবিরোধী কর্মকাণ্ডের অভিযোগে ১২ জন নির্বাচিত কাউন্সিলরের করা অনাস্থা প্রস্তাবের পরিপ্রেক্ষিতে মেয়রের আসন শূন্য ঘোষণা করা হয়েছে। একই সঙ্গে মেয়রের শূন্য পদে ৯০ দিনের মধ্যে উপনির্বাচন করার জন্য নির্বাচন কমিশন সচিবকে বলা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার এক প্রজ্ঞাপনে সাতক্ষীরা পৌর মেয়রের আসনটি শূন্য ঘোষণা করেন স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের উপসচিব আব্দুর রহমান।

তাজকিন আহমেদ সাতক্ষীরা জেলা বিএনপির আহ্বায়ক কমিটির সদস্য ও পৌর বিএনপির সদস্য সচিব। এর আগেও স্থানীয় সরকার বিভাগ থেকে তাকে তিনবার বরখাস্ত করা হয়েছিল।

জানা গেছে, স্থানীয় সরকার বিভাগের প্রশাসনিক অনুমোদন ছাড়া এবং বিধিবহির্ভূতভাবে পৌরসভার ভাগ্যকূল মিষ্টান্ন ভান্ডার সংলগ্ন জমিতে মার্কেট নির্মাণের দরপত্র আহ্বানসহ ১০ দফা অভিযোগ উল্লেখ করে তাজকিন আহমেদের বিরুদ্ধে ১২ কাউন্সিলর আগস্টের শেষ সপ্তাহে জেলা প্রশাসক বরাবর লিখিত অনাস্থা প্রস্তাব দাখিল করেন।

তাজকিন আহমেদ পরপর দুবার বিএনপির ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে মেয়র নির্বাচিত হন। প্রথম মেয়াদে দুটি নাশকতা মামলায় তার বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র আদালত গ্রহণ করার পর ২০১৬ সালের ৪ মে স্থানীয় সরকার বিভাগের এক চিঠিতে তাকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়। পরে অবশ্য তা প্রত্যাহার হয়। দ্বিতীয় মেয়াদে ৫৮ লাখ ১৯ হাজার ৭০১ টাকা পানির বিল মওকুফ, হাটবাজার ইজারা বাবদ ৬৬ লাখ ৭০ হাজার ৯৭০ টাকা বকেয়া, পৌর কর ১ কোটি ২৬ লাখ ২২ হাজার ৯৪৩ টাকা এবং ট্রেড লাইন্সেস ফি ১৪ লাখ ১৩ হাজার ৭২৬ টাকা মওকুফ করাসহ বিভিন্ন অনিময় ও দুর্নীতির অভিযোগে ২০২২ সালের ১৫ জুন তাকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়। এ ছাড়া নাশকতার মামলায় গ্রেফতার হওয়ায় এ বছর ৬ ফেব্রুয়ারি তাকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়। বরখাস্তের এই আদেশ হাইকোর্টের নির্দেশে পরবর্তীতে প্রত্যাহার করা হয়।