কাউখালী উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতাদের অনুপস্থিতিতে স্মার্ট বাংলাদেশ বির্নিমানের প্রত্যয়ে সূধী সমাবেশ


রুদ্রবাংলা প্রকাশের সময় : অক্টোবর ৯, ২০২৩, ১২:১৯ /
কাউখালী উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতাদের অনুপস্থিতিতে স্মার্ট বাংলাদেশ বির্নিমানের প্রত্যয়ে সূধী সমাবেশ

এনামুল হক বিশেষ প্রতিনিধিঃ কাউখালী উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতাদের অনুপস্থিতিতে স্মার্ট বাংলাদেশ বির্নিমানের প্রত্যয়ে সূধী সমাবেশ অনুষ্ঠিত।

আসন্ন দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে স্মার্ট বাংলাদেশ বির্নিমানের প্রত্যয়ে পিরোজপুরের কাউখালী উপজেলা পরিষদের আয়োজনে সূধী সমাবেশ শনিবার রাতে উপজেলা পরিষদ চত্বরে অনুষ্ঠিত হয়। উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আবু সাঈদ মিয়া মনুর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন, পিরোজপুর জেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক ও জেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান মহিউদ্দিন মহারাজ।

বিশেষ অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন নেছারাবাদ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মোঃ আব্দুল হক, স্বরূপকাঠি পৌরসভার মেয়র মোঃ গোলাম কবির, ভান্ডারিয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মিরাজুল ইসলাম, ভান্ডারিয়া পৌরসভার মেয়র ফাইজুর রশিদ খসরু, পিরোজপুর আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক আওয়ামী লীগ নেতা এডভোকেট এম এ আউয়াল। অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন জেলা পরিষদের সাবেক সদস্য ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মামুন হোসাইন বাবলু জমাদ্দার, কাউখালী সদর ইউপি চেয়ারম্যান মোস্তাফিজুর রহমান, আমরাজুড়ী ইউপি চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর হোসেন মুন্সী, শিয়ালকাঠী ইউপি চেয়ারম্যান গাজী ছিদ্দিকুর রহমান, সয়না রঘুনাথপুর ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ আবু সাঈদ, তেলিখালী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শামসুদ্দিন হাওলাদার, নেছারাবাদ উপজেলার মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নার্গিস জাহান, শিয়ালকাঠী ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান সিকদার মোঃ দেলোয়ার হোসেন প্রমূখ।

প্রধান অতিথি তার বক্তব্যে বলেন, দেশের উন্নয়নের স্বার্থে আবারও আওয়ামীলীগ সরকারকে আপনারা নির্বাচিত করবেন। আমি সংসদ সদস্য নির্বাচিত হলে তিন উপজেলার মধ্যে কোন বৈষম্য থাকবে না। উপজেলার পাঁচটি ইউনিয়ন থেকে কয়েক হাজার লোক উপস্থিত ছিলেন। আওয়ামী লীগ নেতাদের অনুপস্থিতীর কারন জানতে চাইলে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এ্যাড. এ কে এম আব্দুস শহীদ ও সাধারণ সম্পাদক মনিরুজ্জামান তালুকদার জানান অনুষ্ঠানে উপজেলা চেয়ারম্যান আবু সাঈদ মুনু জাতীয় পার্টি জে পি থেকে পদত্যাগ করে আওয়ামী লীগে যোগদান করবেন বলে বিভিন্ন সূত্রে জানতে পারেন। একরণে তারা অনুষ্ঠানে আসতে উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ অনিহা প্রকাশ করেন।