স্মার্ট প্ল্যান সিকিউরিটি সার্ভিস এর প্রতারণার ফাঁদে  তরুণ তরুণীরা, ভুক্তভোগীদের আহাজারি দেখার কেউ নেই


রুদ্রবাংলা প্রকাশের সময় : অক্টোবর ১, ২০২৩, ১৯:১১ /
স্মার্ট প্ল্যান সিকিউরিটি সার্ভিস এর প্রতারণার ফাঁদে  তরুণ তরুণীরা, ভুক্তভোগীদের আহাজারি দেখার কেউ নেই

রাজধানীর উওরায় একাধিক সিকিউরিটি সার্ভিস কোম্পানী  ভূয়া, এর মধ্যে চিন্হিত স্মার্ট প্ল্যান সিকিউরিটি সার্ভিস, ১০ নং সেক্টর ১৩ নম্বর রোড ৩৫ বাসা ৫ তালা,  চাকরি দেওয়ার  নামে  প্রতারণা বাণিজ্য করে আসছেন, দীর্ঘদিন ধরে উওরায়,স্মার্ট প্ল্যান সিকিউরিটি সার্ভিস এর লাইসেন্স  টির নামে একাধিক অভিযোগ, মার্কেটিং অফিসার পদে, উপপরিদর্শক পদে,  সহকারী অফিস সুপারভইজার  পদে চাকরি দেওয়ার নামে প্রতারণা বাণিজ্য করে আসছেন প্রতারক   মোঃ রবিউল ইসলাম রতন ওরফে (সৌরভ)এর  স্ত্রী মোছাঃ সোনালী ইসলাম মৌ ওরফে সুমীর নামে লাইসেস  ,  ট্রেড লাইসেন্স নেই ,  ৩০ থেকে ৪০ হাজার টাকা খরচ করিলে নিয়মনীতি ছাড়াই  সিকিউরিটি সার্ভিস কোম্পানীর লাইসেন্স পাওয়া যায়  বলেন রবিউল ইসলাম রতন ওরফে সৌরভ) আরো বলেন, পত্রিকায় একাধিক নিউজ প্রকাশ হলে, আবার নতুন একটি সিকিউরিটি সার্ভিস ব্যানার পাওয়া যায়, প্রশাসন হাত থাকলে সাংবাদিকরা নিউজ করে কি বাল করবে,  আমার নামে কোম্পানির অনেক নিউজ হয়েছে আমাকে কি প্রশাসন গ্রেফতার করেছেন , রবিউল ইসলাম রতন ওরফে সৌরভ এর টুটির জোর কোথায়, একাধিক নিউজ এবং ভুক্তভোগীরা উওরা পশ্চিম থানায় জিডি ও অভিযোগ করার পরোও, রবিউল ইসলাম রতন ওরফে সৌরভ এর কিছুই হয় না মানুষ বেচাকেনা প্রতারণা ব্যবসা বন্ধ হয় না।

 ভূয়া সিকিউরিটি সার্ভিস ব্যানারে কোটি  কোটি টাকা অবৈধ বাণিজ্য  করে  তিন তালা বাড়ি নির্মাণ করছেন প্রতারক , মোঃ রবিউল ইসলাম রতন ওরফে সৌরভ, বয়স (৩০)কোম্পানির চেয়ারম্যান মোছাঃ সোনালী ইসলাম মৌসুমি ওরফে সুমী বয়স (২২), এমডি মোঃ শাহীন খান বয়স (৩৫)মোঃ সজীব ইসলাম বয়স (২৮) এই প্রতারক চক্র টি স্মার্ট প্ল্যান সিকিউরিটি সার্ভিস  কোম্পানী  লাইসেন্স ব্যবহার করে   কোন প্রশিক্ষণ ছাড়াই উওরায় চাকরি দেওয়ার নামে প্রতারণা বাণিজ্য করে আসছেন, এমএলএম ব্যবসা  কৌশল ব্যবহার করে,সিকিউরিটি চাকরির   লোভীয়  বিজ্ঞাপন  কোনো  জামানত ছাড়া ৮ ঘণ্টা ডিউটি করলে ২০ হাজার টাকা বেতন, প্রথম অফিসে ডুকলেই ৫০০ ফর্মের টাকা দিতে হয়, তার পরে শুরু হয় প্রতারণা হাজার হাজার অসহায় পরিবারের তরুণ তরণীদের  পড়তে হয় এ প্রতারক চক্রের খপ্পরে,  কিছু অসাধু পুলিশ  অফিসারের কারণে থানায় ভুক্তভোগীরা জিটি ও অভিযোগ করলেও  তাহা  ধামাচাপা দিয়ে  দেয় বলে জানা যায়,  কিছু ভুক্তভোগীদের কাছ থেকে সমাধান হয় কিছু সামথিং   টাকা হাতে দিয়ে দেয় বাড়িতে যাওয়ার জন্য, এস প্রতারক চক্রের সদস্যদের কে কি  পুলিশ সদস্য   সহযোগিতা করে আসছেন সরোজমিনে অনুসন্ধান করে জানা যায় , এবিষয় নিয়ে মুঠোফোনে কথা হয় উওরা  ডিভিশনের  ডিসি স্যারের সাথে তিনি বলেন, আমরা  ইদানিং বিভিন্ন গণমাধ্যমে  দেখছি খুব কম বয়সের  তরুণ তরণীদের বিজ্ঞাপন দিয়ে ঢাকা এনে তাঁদের সাথে চাকরি দেওয়ার  নাম বলে টাকা নিচ্ছেন , কিছু সিকিউরিটি সার্ভিস এর  সদস্যরা, এঁদের কে কিছু সদস্যদের মামলা দেওয়া হয়েছে বাকি গুলো অনুসন্ধান করে  দূরত্ব অভিযান দিয়ে গ্রেফতার করে মামলা দেওয়া হবে,আরো বলেন কোনো পুলিশ সদস্য যদি সিকিউরিটি সার্ভিস প্রতারকদের সহযোগিতা করেন তাহা যদি সত্য তথ্য প্রর্মাণ থাকলে সেই পুলিশ সদস্যের  বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে, সিকিউরিটি সার্ভিস নামে চলছে এমএলএম ব্যবসা জমজমাট আলোর মাঝে অন্ধকার দেখার কেউ নেই মনে হয়,প্রতারণা রবিউল ইসলাম রতন ওরফে সৌরভ রুমে স্মার্ট প্ল্যান সিকিউরিটি সার্ভিস এর নামে  একাধিক নিউজ প্রকাশ  হয় বিভিন্ন গণমাধ্যমে এবং কি একাধিক ভুক্তভোগীরা  থানায় জিডি এবং অভিযোগ করেন, তার পরোও কিভাবে চলছে প্রতারণা বাণিজ্য, সুশীল সমাজের মানুষ গুলো বলছেন  দূরত্ব রতনকে গ্রেফতার করা হোক এবং প্রতারণা ব্যবসা বন্ধ করা হোক ,  ভুক্তভোগীর পরিবারের সদস্যদের দাবি শুধু  রবিউল ইসলাম রতন ওরফে সৌরভ নয়, আরো যে সব সিকিউরিটি সার্ভিস নামে প্রতারণা বাণিজ্য করে আসছেন তাদের সকলকেই  বাংলাদেশের সর্বোচ্চ   আইনের আওতায়  শাস্তি দাবি করেন,                           অনুসন্ধান প্রতিবেদন পর্ব ৩  প্ল্যান সিকিউরিটি সার্ভিস এর প্রতারণার ফাঁদে তরুণ তরুণীরা, ভুক্তভোগীদের আহাজারি দেখার কেউ নেই। , উওরা প্রতিনিধি জিয়াউর রহমান জিয়া, রাজধানীর উওরায় একাধিক সিকিউরিটি সার্ভিস কোম্পানী ভূয়া, এর মধ্যে চিন্হিত স্মার্ট প্ল্যান সিকিউরিটি সার্ভিস,১০ নং সেক্টর ১৩ নম্বর রোড ৩৫ বাসা ৫ তালা, চাকরি দেওয়ার নামে প্রতারণা বাণিজ্য করে আসছেন, দীর্ঘদিন ধরে উওরায়,স্মার্ট প্ল্যান সিকিউরিটি সার্ভিস এর লাইসেন্স টির নামে একাধিক অভিযোগ, মার্কেটিং অফিসার পদে, উপপরিদর্শক পদে, সহকারী অফিস সুপারভইজার পদে চাকরি দেওয়ার নামে প্রতারণা বাণিজ্য করে আসছেন প্রতারক মোঃ রবিউল ইসলাম রতন ওরফে (সৌরভ)এর স্ত্রী মোছাঃ সোনালী ইসলাম মৌ ওরফে সুমীর নামে লাইসেস , ট্রেড লাইসেন্স নেই , ৩০ থেকে ৪০ হাজার টাকা খরচ করিলে নিয়মনীতি ছাড়াই সিকিউরিটি সার্ভিস কোম্পানীর লাইসেন্স পাওয়া যায় বলেন রবিউল ইসলাম রতন ওরফে সৌরভ)আরো বলেন,পত্রিকায় একাধিক নিউজ প্রকাশ হলে, আবার নতুন একটি সিকিউরিটি সার্ভিস ব্যানার পাওয়া যায়, প্রশাসন হাত থাকলে সাংবাদিকরা নিউজ করে কি বাল করবে, আমার নামে কোম্পানির অনেক নিউজ হয়েছে আমাকে কি প্রশাসন গ্রেফতার করেছেন ,রবিউল ইসলাম রতন ওরফে সৌরভ এর টুটির জোর কোথায়, একাধিক নিউজ এবং ভুক্তভোগীরা উওরা পশ্চিম থানায় জিডি ও অভিযোগ করার পরোও, রবিউল ইসলাম রতন ওরফে সৌরভ এর কিছুই হয় না মানুষ বেচাকেনা প্রতারণা ব্যবসা বন্ধ হয় না, ভূয়া সিকিউরিটি সার্ভিস ব্যানারে কোটি কোটি টাকা অবৈধ বাণিজ্য করে তিন তালা বাড়ি নির্মাণ করছেন প্রতারক , মোঃ রবিউল ইসলাম রতন ওরফে সৌরভ, বয়স (৩০)কোম্পানির চেয়ারম্যান মোছাঃ সোনালী ইসলাম মৌসুমি ওরফে সুমী বয়স (২২), এমডি মোঃ শাহীন খান বয়স (৩৫)মোঃ সজীব ইসলাম বয়স (২৮) এই প্রতারক চক্র টি স্মার্ট প্ল্যান সিকিউরিটি সার্ভিস কোম্পানী লাইসেন্স ব্যবহার করে কোন প্রশিক্ষণ ছাড়াই উওরায় চাকরি দেওয়ার নামে প্রতারণা বাণিজ্য করে আসছেন, এমএলএম ব্যবসা কৌশল ব্যবহার করে,সিকিউরিটি চাকরির লোভীয় বিজ্ঞাপন কোনো জামানত ছাড়া ৮ ঘণ্টা ডিউটি করলে ২০ হাজার টাকা বেতন, প্রথম অফিসে ডুকলেই ৫০০ ফর্মের টাকা দিতে হয়, তার পরে শুরু হয় প্রতারণা হাজার হাজার অসহায় পরিবারের তরুণ তরণীদের পড়তে হয় এ প্রতারক চক্রের খপ্পরে, কিছু অসাধু পুলিশ অফিসারের কারণে থানায় ভুক্তভোগীরা জিটি ও অভিযোগ করলেও তাহা ধামাচাপা দিয়ে দেয় বলে জানা যায়, কিছু ভুক্তভোগীদের কাছ থেকে সমাধান হয় কিছু সামথিং টাকা হাতে দিয়ে দেয় বাড়িতে যাওয়ার জন্য, এস প্রতারক চক্রের সদস্যদের কে কি পুলিশ সদস্য সহযোগিতা করে আসছেন সরোজমিনে অনুসন্ধান করে জানা যায় , এবিষয় নিয়ে মুঠোফোনে কথা হয় উওরা ডিভিশনের ডিসি স্যারের সাথে তিনি বলেন, আমরা ইদানিং বিভিন্ন গণমাধ্যমে দেখছি খুব কম বয়সের তরুণ তরণীদের বিজ্ঞাপন দিয়ে ঢাকা এনে তাঁদের সাথে চাকরি দেওয়ার নাম বলে টাকা নিচ্ছেন , কিছু সিকিউরিটি সার্ভিস এর সদস্যরা, এঁদের কে কিছু সদস্যদের মামলা দেওয়া হয়েছে বাকি গুলো অনুসন্ধান করে দূরত্ব অভিযান দিয়ে গ্রেফতার করে মামলা দেওয়া হবে,আরো বলেন কোনো পুলিশ সদস্য যদি সিকিউরিটি সার্ভিস প্রতারকদের সহযোগিতা করেন তাহা যদি সত্য তথ্য প্রর্মাণ থাকলে সেই পুলিশ সদস্যের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে, সিকিউরিটি সার্ভিস নামে চলছে এমএলএম ব্যবসা জমজমাট আলোর মাঝে অন্ধকার দেখার কেউ নেই মনে হয়,প্রতারণা রবিউল ইসলাম রতন ওরফে সৌরভ রুমে স্মার্ট প্ল্যান সিকিউরিটি সার্ভিস এর নামে একাধিক নিউজ প্রকাশ হয় বিভিন্ন গণমাধ্যমে এবং কি একাধিক ভুক্তভোগীরা থানায় জিডি এবং অভিযোগ করেন, তার পরোও কিভাবে চলছে প্রতারণা বাণিজ্য, সুশীল সমাজের মানুষ গুলো বলছেন দূরত্ব রতনকে গ্রেফতার করা হোক এবং প্রতারণা ব্যবসা বন্ধ করা হোক , ভুক্তভোগীর পরিবারের সদস্যদের দাবি শুধু রবিউল ইসলাম রতন ওরফে সৌরভ নয়, আরো যে সব সিকিউরিটি সার্ভিস নামে প্রতারণা বাণিজ্য করে আসছেন তাদের সকলকেই বাংলাদেশের সর্বোচ্চ আইনের আওতায় শাস্তি দাবি করেন, অনুসন্ধান প্রতিবেদন পর্ব ৩